মন এবং সুখ

এই মধুমাসে,
মধুর বাতাসে,
শোন লো মধুর বাঁশী।
এই মধু বনে,
শ্রীমধুসূদনে,
দেখ লো সকলে আসি৷৷
মধুর সে গায়,
মধুর বাজায়,
মধুর মধুর ভাষে।
মধুর আদরে,
মধুর অধরে,
মধুর মধুর হাসে৷৷
মধুর শ্যামল,
বদন কমল,
মধুর চাহনি তায়৷৷
কনক নূপুর,
মধুকর যেন,
মধুর বাজিছে পায়৷৷
মধুর ইঙ্গিতে,
আমার সঙ্গেতে,
কহিল মধুর বাণী।
সে অবধি চিতে,
মাধুরি হেরিতে,
ধৈরয নাহিক মানি৷৷
 
এ সুখ রঙ্গেতে
পর লো অঙ্গেতে
মধুর চিকণ বাস।
তুমি মধুফল,
পর কানে দুল,
পরাও মনের আশ৷৷
গাঁথি মধুমালা,
পর গোপবালা
হাস লো মধুর হাসি।
চল যথা বাজে,
যমুনার কূলে,
শ্যামের মোহন বাঁশী৷৷
চল কথা বাজে,
যমুনার কূলে
ধীরে ধীরে ধীরে বাঁশী।
ধীরে ধীরে যথা,
উঠিছে চাঁদনি,
স্থল জল পরকাশি৷৷
ধীরে ধীরে রাই,
চল ধীরে যাই,
ধীরে ধীরে ফেল পদ।
ধীরে ধীরে শুন,
নাদিছে যমুনা,
কল কল গদ গদ৷৷
ধীরে ধীরে জলে,
রাজহংস চলে,
ধীরে ধীরে ভাসে ফুল।
ধীরে ধীরে বায়ু,
বহিছে কাননে
দোলায়ে আমার দুল৷৷
ধীরে যাবি তথা,
ধীরে কবি কথা
রাখিবি দোহার মান।
ধীরে ধীরে তার
বাঁশীটি কাড়িবি,
ধীরেতে পূরিবি তান৷৷
ধীরে শ্যাম নাম,
বাঁশীতে বলিবি,
শুনিবে কেমন বাজে।
ধীরে ধীরে চূড়া
কাড়িয়ে পরিবি,
দেখিব কেমন সাজে৷৷
ধীরে বনমালা,
গলাতে দোলাবি,
দেখিব কেমন দোলে।
ধীরে ধীরে তার,
মন করি চুরি,
লইয়া আসিবি চলে৷৷
শুন মোর মন
মধুরে মধুরে,
জীবন করহ সায়।
ধীরে ধীরে ধীরে,
সরল সুপথে,
নিজ গতি রেখ তায়৷৷
এ সংসার ব্রজ,
কৃষ্ণ তাহে সুখ,
মন তুমি ব্রজনারী।
নিতি নিতি তার,
বংশীরব শুনি,
হতে চাও অভিসারী৷৷
যাও যাবে মন,
কিন্তু দেখ যেন,
একাকী যেও না রঙ্গে।
মাধুর্য্য ধৈরয,
সহচরী দুই,
রেখ আপনার সঙ্গে৷৷
ধীরে ধীরে ধীরে,
কাল নদীতীরে,
ধরম কদম্ব তলে।
মধুর সুন্দর,
সুখ নটবর,
ভজ মন কুতূহলে৷৷